তিন তালাক নিষিদ্ধের পরে মন্দির নির্মাণ করছেন মুসলিম নারীরা

প্রকাশিতঃ ১২ অক্টোবর, ২০১৯ আপডেটঃ ৩:৫০ অপরাহ্ণ

তিন তালাককে আইন করে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে ঘোষণা করেছে ভারতের মোদী সরকার। যা এতদিন কেউ করেনি। সে কারণে মোদীর মন্দির নির্মাণ করতে যাচ্ছেন মুজফফরনগরের মুসলিম নারীরা। সেই নারী সংগঠনের নেত্রী রুবি গজনি। যার নেতৃত্বে রয়েছেন এলাকার বেশ কয়েকজন নারী।

গোটা বিশ্বে যেখানে মোদী তিন তালাক নিষিদ্ধ করার পর সম্মানিত হতে চলেছেন আর তার জন্য নিজের দেশে কিছু হবে না তা কী হয়? নিজেদের সংসারের খরচ বাঁচিয়ে দেশের প্রধানমন্ত্রীর জন্য মন্দির নির্মাণের খরচ তুলছেন রুবি গজনির মতো ছাপোষা মুসলিম নারীরা।

তিন তালাককে আইন করে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে ঘোষণা করেছেন মোদী সরকার। যা এতদিন কেউ করেনি। রুবি গজনি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, মুসলিম নারীদের জন্য অনেক করেছেন প্রধানমন্ত্রী। উনি সম্মান পাওয়ার যোগ্য। এ ছাড়া তিনি আরও জানিয়েছেন,তিন তালাক প্রথার অবসান করে মুসলিম নারীদের জীবনে বিরাট পরিবর্তন এনেছেন প্রধানমন্ত্রী। তাছাড়া বিনামূল্যে বাড়ি, গ্যাস সংযোগ দিয়েছেন। তাই তার সম্মান হওয়া দরকার।

ইতোমধ্যেই জেলাশাসকের কাছে মন্দির নির্মাণের কথা জানিয়ে স্মারকলিপি জমা দিয়েছেন এই নারীরা। নিজেদের সংসারের খরচ বাঁচিয়ে মন্দির নির্মাণের খরচ তুলেছেন বলে জানিয়েছেন তারা।

তারা মনে করেন, গোটা বিশ্বজুড়ে সম্মানিত হচ্ছেন নরেন্দ্র মোদী। নিজের দেশেও তার সম্মান হওয়া দরকার। রুবি গজনি বলেন, ‘মুসলিম নারীদের তরফে স্পষ্ট বার্তা দিতে চাই, আমরা নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে রয়েছি। ওনাকে মুসলিম বিরোধী তকমা দেওয়ার পিছনে কোনও কারণই নেই।’

এসএইচ-১৯/১২/১৯ (অনলাইন ডেস্ক)