ফের হাসির পাত্র ইমরান খান

প্রকাশিতঃ ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ আপডেটঃ ৪:২১ অপরাহ্ণ

কাশ্মীর ইস্যুতে ভারত বিরোধিতা করতে গিয়ে ফের সোশ্যাল মিডিয়ায় হাসির পাত্র হয়ে উঠলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এবার দেশের হিসাব গুলিয়ে ফেলেছেন তিনি। ১০ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদের বৈঠক ছিল। উপস্থিত ছিলেন পরিষদের অন্তর্ভুক্ত সব দেশ। সেখানেই নাকি ভারত বিরোধী ইস্যুতে পাকিস্তানকে সমর্থন জানিয়েছেন তারা, এমনটাই দাবি করেছেন ইমরান।

টুইট করে তিনি বলেন, আমি সেই ৫৮ দেশকে ধন্যবাদ জানাতে চাই, যারা জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদে পাকিস্তানের তোলা প্রশ্নে সমর্থন জানিয়েছেন। আমরা দাবি জানিয়েছিলাম কাশ্মীরের উপর থেকে সব বিধিনিষেধ তুলে তাদের অধিকার ফিরিয়ে দেবে এবং জাতিসংঘের হস্তক্ষেপে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান করার।

ইমরানের এই টুইটে একটি ভুল করে ফেলেন তিনি। সেটা দেশের হিসেবে। জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদে সদস্য দেশের সংখ্যা ৪৭। তাহলে তিনি ৫৮টি দেশের সমর্থন কীভাবে পেলেন? আর এই ভুলকে নিয়েই সোশ্যাল মিডিয়ায় হাসির খোরাক হয়ে উঠেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী।

কেউ তার ভুল শুধরে দিয়ে বলেছেন, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য দেশের সংখ্যা ৪৭, ৫৮ নয়। কেউ আবার বলেছেন, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ৪৭ দেশের মধ্যে ভারত-পাকিস্তান রয়েছে। তাহলে বাকি ৪৫ দেশের মধ্যে ৫৮ দেশের সমর্থন কীভাবে পেলেন ইমরান। এই থেকেই বোঝা যাচ্ছে পাকিস্তানের অর্থনীতির এই অবস্থা কেন। কেনই বা তারা অঙ্কে এত কাঁচা। অনেকে তো আবার সরাসরি ইমরানের কাছে দাবি জানিয়েছেন, তিনি কি ৫৮টি দেশের নাম বলতে পারবেন।

অবশ্য এই প্রথম নয়, এর আগেও ভুল মন্তব্যে করে হাসির পাত্র হয়েছিলেন ইমরান। এক বৈঠকে তিনি বলেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জার্মানি ও জাপান একে অন্যের বিরুদ্ধে লড়াই করেছিল। কিন্তু বর্তমানে তারা দু’দেশের সীমান্তে যৌথভাবে শিল্প গড়ে তুলেছে। যেহেতু দু’দেশেরই এতে অর্থনীতি জড়িয়ে, তাই কেউ কারও ক্ষতি করছে না।

ইমরানের এই বক্তব্যের পরেই প্রশ্ন ওঠে, জার্মানি ইউরোপে রয়েছে ও জাপান এশিয়াতে। দু’দেশের মশ্যে কয়েক হাজার কিলোমিটার দূরত্ব। কীভাবে দু’দেশকে পড়শি বানিয়ে দিলেন ইমরান। আর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে দু’দেশই তো এক পক্ষেই ছিলেন। তাহলে কীভাবে এক অন্যের রক্ত ঝরালেন তারা। এই মন্তব্যের পরেও দেশেও কটাক্ষের মুখে পড়তে হয় পাক প্রধানমন্ত্রীকে।

এসএইচ-১১/১৪/১৯ (আন্তর্জাতিক ডেস্ক)