মুখে পেঁয়াজের দুর্গন্ধ! দূর করুন সহজ উপায়ে

প্রকাশিতঃ ১৩ November, ২০১৯ আপডেটঃ ৩:১৫ PM

অনেকে কাঁচা পেঁয়াজ ও রসুন খেয়ে থাকেন। বিভিন্ন খাদ্যগুণে ভরপুর এই উপাদানের খারাপ গুণ হলো খাওয়ার পর নিঃশ্বাসে দুর্গন্ধ থেকে যায়। এ থেকে মুক্তির উপায় সবাই খোঁজেন। আসলে পেঁয়াজ ও রসুন কাটার সঙ্গে সঙ্গে এদের মধ্যে থাকা কিছু সালফার জাতীয় পদার্থ বেরিয়ে হাওয়ার সংস্পর্শে আসে ও এদের বিশেষ গন্ধটি উৎপন্ন করে।

অ্যালাইল মিথাইল সালফাইড নামক একটি বিশেষ জৈব রাসায়নিক পেঁয়াজ রসুন খাওয়ার পর আমাদের রক্তে মিশে যায় আর ফুসফুস ও ত্বকের রন্ধ্র দিয়ে বাইরে বেরিয়ে আসে। একারণেই যেমন নিঃশ্বাসে দুর্গন্ধ হয়, তেমনই ঘামেও দুর্গন্ধ তৈরি হয়। খুব সহজেই দূর করতে পারবেন মুখের দুর্গন্ধ। জেনে নিন পদ্ধতিগুলো-

পানি পান করুন

প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন। স্বাভাবিকভাবে পেঁয়াজ রসুন খেলে এর কণাও আটকে থাকে মুখের ভেতর। তাই এ ধরনের খাবার খাওয়ার পর প্রচুর পানি পান করুন। পানি মুখের নানা কোণে আটকে থাকা পেঁয়াজ রসুনের কণাকে পরিষ্কার করে দেয়। ফলে পেঁয়াজ রসুনের দুর্গন্ধ দূর হয় সহজেই।

ব্রাশ করুন 

পেঁয়াজ রসুন খাওয়ার পরে মুখের ভিতরে জমে থাকা খাবারের প্লাকে এদের কণা আটকে থাকে। এতে মুখের দুর্গন্ধ হতে পারে। দুর্গন্ধ তাড়াতে খাবার খাওয়ার পর ভালোভাবে দাঁত ব্রাশ করুন। মুখের ভিতরে টাকরা ও মাড়িও পরিষ্কার করুন।

মাউথ ওয়াশ 

মুখের দুর্গন্ধ তাড়াতে ও মুখের ভিতরের প্লাক পরিষ্কার করতে অনেক বিশেষজ্ঞ পরামর্শ দেন মাইথ ওয়াশ দিয়ে কুলকুচি করতে। এর ফলে পেঁয়াজ ও রসুনের কণা মুখের ভিতর জমে থাকলে তা পরিষ্কার হয়ে যায়। মাউথ ওয়াশের ফ্লেভারের তীব্রতা ঢাকা দেয় পেঁয়াজ রসুনের দুর্গন্ধকে।

লেবুপানি

লেবুপানিতেও পেঁয়াজ রসুনের গন্ধ মুখ থেকে তাড়ানো সম্ভব। লেবুর মধ্যে থাকা অ্যাসিড পেঁয়াজ রসুনের সালফার জাতীয় যৌগগুলিকে প্রশমিত করে। ফলে মুখ থেকে দূর হয়ে যায় বিকট দুর্গন্ধ।

সবুজ চা 

মুখের দুর্গন্ধ তাড়াতে সবুজ চা খেতে পারেন। এটি দেহে রক্ত চলাচল বাড়ায় ও কন্ট্রোশড ডায়েটের মধ্যে থাকা সবাই গ্ৰিন টি খান। তবে পেঁয়াজ রসুনের দুর্গন্ধ তাড়াতেও গ্ৰিন টি সমান উপকারী। পেঁয়াজ ও রসুনযুক্ত খাবার খাওয়ার পর খান এক কাপ গ্ৰিন টি। দেখবেন আপনার নিশ্বাস থেকে পেঁয়াজ রসুনের দুর্গন্ধ উধাও হয়ে গিয়েছে।

দুধ  খেতে পারেন 

পেঁয়াজ রসুনের দুর্গন্ধ দূর করতে দুধ খেতে পারেন। এমনটা শুনে অবাক লাগাই স্বাভাবিক। তবে গবেষণা বলছে দুধে থাকা ফ্যাটজাতীয় পদার্থই পেঁয়াজ রসুনের সালফার জাতীয় পদার্থগুলিকে ভেঙে দেয়। এই সালফার জাতীয় পদার্থই মুখের ভিতর গন্ধ তৈরি করে। তাই সর সহ দুধ খেলে মুখের মধ্যে থাকা পেঁয়াজ রসুনের রাসায়নিক পদার্থগুলো ক্রিয়াবিক্রিয়ার মাধ্যমে দুর্গন্ধ সৃষ্টি করতে পারবে না।

চুইংগাম চিবোন 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন,খাওয়াদাওয়ার পর চুইংগাম চিবোলেও পেঁয়াজ রসুনের দুর্গন্ধ সহজেই নিশ্বাস থেকে দূর হয়ে যায়। চুইংগাম চিবোতে থাকলে এটি স্যালাইভার উৎপাদন বাড়িয়ে দেয়। যা মুখের মধ্যের ব্যাকটেরিয়া ও অন্যান্য দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী পদার্থকে প্রশমিত করে দেয়। অর্থাৎ পেঁয়াজ রসুনের দুর্গন্ধ দূর করাটা এখন আর কোনো ব্যাপারই নয়।